রবিবার, ২০-অক্টোবর ২০১৯, ০৭:০৮ পূর্বাহ্ন

মিরাকল!

shershanews24.com

প্রকাশ : ২৯ জুন, ২০১৯ ০৯:৫৯ পূর্বাহ্ন

আবদুল বাতেন: রাশিয়ায় মঙ্গোলিয়া সীমান্তের কাছে দুর্গম তুবান এলাকায় হিংস্র উল্লুকের ডেরা থেকে মৃতপ্রায় এক ব্যক্তিকে উদ্ধার করা হয়েছে।
ব্রাউন বিয়ার নামে ভয়ঙ্কর প্রজাতির এই ভল্লুক লোকটির স্পাইনাল কর্ড বা মেরুদন্ডের হাড় ভেঙ্গে পরিসর একটি গর্তের মধ্যে নিয়ে রেখে দেয়।এই শিকারী ভল্লুক খাদ্য হিসেবে অচল,আহত লোকটিকে মৃত ভেবে ভবিষ্যতের খাবার হিসেবে মজুদ রাখে।এই ভল্লুক সব ধরণের প্রাণী শিকার ও ভক্ষণ করে।এরা শুধু খাদ্য গ্রহনই করে না, ভবিষ্যতের জন্য খাদ্য মজুদ করে।
দুর্গম এই অঞ্চলে একদল শিকারী গর্তটির কাছ দিয়ে যাচ্ছিল,এ সময় তাদের সঙ্গে থাকা শিকারী কুকুর দৌঁড়ে গর্তটির কাছে যায়,আবার ফিরে আসে,কুকুরটি কিছু একটা দেখেছে এমন ইঙ্গিত পেয়ে শিকারীরা গর্তের কাছে যায়,তারা উঁকি দিয়ে মৃত ও মমি হয়ে যাওয়া একটি দেহ দেখতে পায়।অবস্থা দেখে তারা নিশ্চিত ছিল এটি একটি মমি।পরে তারা উদ্ধারকারীদের খবর দেয়।উদ্ধারকারী ও মেডিকসদের কাছেও দেহটিকে মমি মনে হয়,তারা লোকটি কাছে গেলে দেখতে পায় লোকটির একটি চোখ খোলা এবং সেটি নড়ছে।উদ্বারকারীরা তার সঙ্গে কথা বলার চেষ্টা করে।লোকটি কথা বলতে শুরু করে,সে জানায় তার নাম আলেকজান্ডার।সে তুবান স্থানীয় ভাষায় চেয়ে রাশিয়ান ভাষায় বলছিল,ভাল্লুক তাকে মেরুদন্ডের হাড় ভেঙ্গে এবং যখম করে এখানে টেনে এনে রেখেছে,এখান সে প্রায় একমাস এ অবস্থায় আছে।ভল্লুকটি খাবার সংকট হলে আবার এখানে আসবে।নিশ্চিত মৃত্যু জেনেও বাঁচার জন্য প্রথমে সে তার নিজের ইউরিন পান করেছে। এখন গোটা শরীর অসার, এ অবস্থায় উল্লুকের ফিরে আসার প্রহর গুনছিল।তার চামড়া শুকিয়ে হাড়ের সঙ্গে লেগে গেছে,শরীরে জলীয় কিছু নাই।একটি চোখ খোলা এবং একটি দুইটি কথা বলেন।পুরো নাম পরিচয় কিছুই সে বলতে পারেনি।
শিকারীদের কাছে লোকটির বেঁচে থাকার বিষয়টি একটি মিরাকল।তারা পুরো ঘটনার ভিডিও ও ছবি ধারণ করেন।