বুধবার, ১৬-অক্টোবর ২০১৯, ১১:৪৬ পূর্বাহ্ন
  • জেলা সংবাদ
  • »
  • নদীতে নেমে নিখোঁজ রুয়েট ছাত্র, কয়েক দফা তল্লাশিতেও মেলেনি

নদীতে নেমে নিখোঁজ রুয়েট ছাত্র, কয়েক দফা তল্লাশিতেও মেলেনি

shershanews24.com

প্রকাশ : ০৭ জুন, ২০১৯ ০৩:০৬ অপরাহ্ন

শীর্ষকাগজ, নওগাঁ: নওগাঁ শহরের মধ্য দিয়ে প্রবাহিত ছোট যুমনা নদীতে গোসল করতে নেমে পানিতে ডুবে সাফি মাহমুদ রিফাত (২৪) নামে এক শিক্ষার্থী নিখোঁজ হয়েছে। 
বৃহস্পতিবার দুপুরে নওগাঁ সরকারি ডিগ্রি কলেজের সামনে নদীতে নেমে তিনি নিখোঁজ হন।
নিখোঁজ সাফি মাহমুদ রিফাত রাজশাহী ইউনিভার্সিটি অফ ইঞ্জিনিয়ারি এন্ড টেকনোলজি (রুয়েট) চতুর্থ বর্ষের ছাত্র।
এ সময় সাফি মাহমুদ রিফাতের সঙ্গে নদীতে গোসল করতে নেমেছিলে তার চাচাতো ভাই নওগাঁ কেডি সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির ছাত্র আজলান শাহরিয়ার উল্লাস (১৭)। আজলান শাহরিয়ার উল্লাস সাতরিয়ে নদী পার হয়ে উঠে যায় অপর প্রান্তে। সেখান থেকে এক ব্যক্তির ফোন থেকে বাড়িতে সাফি মাহমুদ রিফাতের নদীতে ডুবে যাওয়ার কথা জানায়।
খবর পেয়ে পরিবারের লোকজনসহ এলাকাবাসী ঝাপিয়ে পড়ে নদীতে। সঙ্গে সঙ্গে খবর দেওয়া হয় নওগাঁ ফায়ার সার্ভিস অফিসে। নওগাঁ ফায়ার সার্ভিসে ডুবুরি না থাকায় নওগাঁ অফিস রাজশাহীতে খবর দেয়।
বৃহস্পতিবার বেলা সোয়া ৩ টার দিকে রাজশাহী থেকে নওগাঁ এসে ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি দল নদীতে তল্লাশি চালায়। রাত সাড়ে ৮ টা পর্যন্ত সম্ভাব্য প্রায় এক কিলোমিটার এলাকা জুড়ে তারা তল্লাশি চালিয়েও নিখোঁজ সাফি মাহমুদ রিফাতকে উদ্ধার করতে পারেনি। রাত ৮ টার দিকে তল্লাশি অভিযান স্থগিত করেন।
নওগাঁ ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্সের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সবুর আলী জানান, ১০ সদস্যের একটি উদ্ধারকারী দল বৃহস্পতিবার বিকেলে সাড়ে ৩টা থেকে নিখোঁজ রুয়েট শিক্ষার্থীকে উদ্ধারে কাজ করে যাচ্ছে। নদীর তলদেশে স্রোতের চাপ বেশি থাকায় উদ্ধার কাজ পরিচালনা করতে বেশ বেগ পেতে হচ্ছে। তিনি বলেন, ‘বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ৮ টায় উদ্ধার অভিযান স্থগিত করা হয়েছে। ’
আজ শুক্রবার সকাল ৮ টা থেকে ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি দল আবারও ছোট যমুনা নদীতে উদ্ধার কাজ শুরু করে। বেলা ১২ টা পর্যন্ত কয়েক দফায় নদীর তলদেশে তল্লাশি চালিয়েও সাফি মাহমুদ রিফাতের কোনো সন্ধান পায়নি ডুবুরি দল। এখনো তল্লাশি অভিযান অব্যাহত রয়েছে।
রুয়েট শিক্ষার্থী নদীতে গোসল করতে নেমে নিখোঁজ হওয়ার খবর পেয়ে নওগাঁ-৫ (সদর) আসনের সংসদ সদস্য ব্যারিস্টার নিজাম উদ্দিন জলিল জন বৃহস্পতিবার বিকেলে ও রাতে দুই দফায় ঘটনাস্থলে যান এবং উদ্ধার কাজে যেন কোনো গাফিলতি না হয় সে ব্যাপারে নির্দেশ দেন। এ সময় তিনি নিখোঁজ সাফি মাহমুদ রিফাতের পরিবারের সঙ্গে কথা বলেন। 
বৃহস্পতিবার বিকেলে নওগাঁর জেলা প্রশাসক (ডিসি) মো. মিজানুর রহমান, পুলিশ সুপার (এসপি) মো. ইকবাল হোসেন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন এবং নিখোঁজ সাফি মাহমুদ রিফাতের পরিবারের সঙ্গে কথা বলে তাদের সান্ত্বনা দেন। 
এছাড়া, নওগাঁ সদর মডেল থানার অফিসার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. সোহরাওয়ার্দী হোসেন, ডিবি পুলিশের ইন্সপেক্টর মো. সাজেদুর রহমান, উপপরিদর্শক (এসআই) আব্দুল্লাহ আল মামুন, এসআই আব্দুর রাজ্জাক সার্বক্ষনিক ফায়ার সার্ভিসের উদ্ধার কাজের সঙ্গে আছেন।
নিখোঁজ সাফি মাহমুদ রিফাত নওগাঁ শহরের কোমাইগাড়ী মহল্লার সিরাজুল ইসলামের বড় ছেলে। সে নওগাঁ জিলা স্কুল থেকে এসএসসি পাস করে। নওগাঁ সরকারি কলেজ থেকে এইচএসসি পাস করে ভর্তি হন রুয়েটে।
শীর্ষকাগজ/এম