শনিবার, ১৯-অক্টোবর ২০১৯, ০৪:৫১ অপরাহ্ন

নবাবগঞ্জে ভুল চিকিৎসায় গৃহবধূর মৃত্যু

shershanews24.com

প্রকাশ : ০৮ জুন, ২০১৯ ০৮:৫৯ পূর্বাহ্ন

শীর্ষকাগজ, ঢাকা: ঢাকার নবাবগঞ্জের প্যারাগন হাসপাতাল অ্যান্ড ট্রমা সেন্টারে ভুল চিকিৎসায় নুরজাহান আক্তার (৩৪) নামে এক গৃহবধূর মৃত্যু হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। 
গত সোমবার স্বামীর ছুরিকাঘাতে মারাত্মক আহত নুরজাহানকে নবাবগঞ্জের বেসরকারি ক্লিনিক প্যারাগন হাসপাতাল অ্যান্ড ট্রমা সেন্টারে ভর্তি করেন তার স্বজনরা। নুরজাহানের বোন সুমী আক্তারের দাবি, চিকিৎসকের ভুল চিকিৎসাই তার বোনের মৃত্যু হয়েছে।
স্বজনরা জানায়, উপজেলার কলাকোপা ইউনিয়নের বিবিরচর এলাকার নিজ বাড়িতে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে নুরজাহানের পেটে ছুড়িকাঘাত করে তার স্বামী আরফান আলী।
মারাত্মক আহত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেয়া হলে চিকিৎসকরা তাকে ঢাকায় নিয়ে যাওয়ার পরামর্শ দেন। কিন্তু উপজেলার বাগমারায় অবস্থিত প্যারাগন হাসপাতাল অ্যান্ড ট্রমা সেন্টারের ম্যানেজার নাঈমের সঙ্গে ১৮ হাজার টাকা চুক্তিতে তাকে সেখানে ভর্তি করা হয়।
নুরজাহানের অপারেশন করেন হাসপাতালের চিকিৎসক ডা. কামরুজ্জামান কাঞ্চন। এরপর তার অবস্থার আরও অবনতি হলে মুমূর্ষু অবস্থায় তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হয়। সেখানকার চিকিৎসকরা জানান, সঠিকভাবে অপারেশন করা হয়নি। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৬টা ৩০ মিনিটে নুরজাহানের মৃত্যু হয়।
সুমী আরও জানান, প্যারাগন হাসপাতালে তার বোনের সঠিক চিকিৎসা না হওয়ায় তার নাড়ি পচে যায়। এ কারণে তার মৃত্যু হয়েছে। থানায় মামলা করেছি। 
প্যারাগন হাসপাতাল অ্যান্ড ট্রমা সেন্টারের উপ-মহাব্যবস্থাপক সাখায়াত হোসেন বাপ্পি বলেন, প্যারাগন হাসপাতালে অপারেশনের পর রোগী বাড়িতে চলে যায়। এ ব্যাপারে আর কিছু জানি না।
নবাবগঞ্জ থানার উপ-পরিদর্শক মুন্সী আশিকুর রহমান বলেন, এ ঘটনায় থানায় মামলা হয়েছে। জড়িতদের বিরুদ্ধে দ্রুত ব্যবস্থা নেয়া হবে। উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্মকর্তা ডা. মো. শহিদুল ইসলাম বলেন, বিষয়টি শুনেছি।
কারও অবহেলায় মানুষের মৃত্যু আমাদের কাম্য নয়। তদন্তে ভুল চিকিৎসা প্রমাণিত হলে প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে। জানা গেছে, ডা. কাঞ্চন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের একজন মেডিকেল অফিসার। তার সার্জারি করার অনুমোদন না থাকলেও তিনি প্রতিনিয়ত প্যারাগন হাসপাতালে সার্জারি করে থাকেন।
শীর্সকাগজ/এম