সোমবার, ২৪-জুন ২০১৯, ১১:৫৯ অপরাহ্ন
  • জেলা সংবাদ
  • »
  • দাফনের পরদিন রেলওয়ে স্টেশনে বসেছিল গোলাপী!

দাফনের পরদিন রেলওয়ে স্টেশনে বসেছিল গোলাপী!

Sheershakagoj24.com

প্রকাশ : ১২ জুন, ২০১৯ ০৮:১৩ অপরাহ্ন

শীর্ষকাগজ, রাজশাহী : দাফনের একদিন পর জীবিত অবস্থায় এলাকায় ফিরেছেন রাজশাহীর আড়ানী পৌর এলাকার এক গৃহবধূ। বুধবার দুপুরে আড়ানী ইউনিয়ন পরিষদ থেকে গোলাপী বেগম (২৫) নামের ওই গৃহবধূকে উদ্ধার করে পুলিশ।

বুধবার সকাল ১০টার দিকে আড়ানী রেলওয়ে স্টেশনে ওই নারীকে বসে থাকতে দেখেন স্থানীয়রা। পরে তাকে নেয়া হয় ইউনিয়ন পরিষদে। খবর পেয়ে সেখানে পৌঁছান গোলাপী বেগমের মামা শাকিব হোসেন, শাশুড়ি মরিয়ম বেগম, ভাসুর মাজদার রহমান ও জা সাজেদা বেগম। তারাই শনাক্ত করেন ওই নারীকে।

গোলাপী বেগম আড়ানী পৌর এলাকার পাঁচপাড়া মহল্লার বাকপ্রতিবন্ধী মনির হোসেনের স্ত্রী। ছয় বছরের ছেলে সন্তানের জননী এই নারী সম্প্রতি নিরুদ্দেশ হন।

এরই মধ্যে ১০ জুন বাঘা উপজেলার চকবাউসা এলাকার ভুট্টাক্ষেত থেকে এক নারীর মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। খবর পেয়ে পরদিন মরদেহ গোলাপী বেগমের বলে শনাক্ত করেন তার স্বজনরা।

ময়নাতদন্ত শেষে মঙ্গলবার দুপুরে মরদেহ স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করে পুলিশ। ওই দিনই সন্ধ্যায় স্থানীয় গোরস্তানে মরদেহ দাফন করা হয়। মৃত গোলাপী জীবিত অবস্থায় ফেরায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে এলাকাজুড়ে।

নিরুদ্দেশ হওয়ার কারণ জানিয়ে গোলাপী বেগম বলেন, গত ২৯ মে ৪২ হাজার টাকায় তার একটি গরু বিক্রি করেন। সেই টাকা হাতিয়ে নেয়ার চেষ্টা করছিল শ্বশুরবাড়ির লোকজন। টাকা রক্ষায় বিদ্যুৎবিল পরিশোধের নাম করে বাড়ি থেকে পালিয়ে যান তিনি। এরপর রাজশাহী শহরের এক আত্মীয়ের বাড়িতে আত্মগোপন করেন। তিনি পাঁচ মাসের অন্তঃসত্ত্বা। তাছাড়া ছয় বছরের এক ছেলে রয়েছে তার। এসব বিষয় চিন্তা করেই এ কাণ্ড ঘটান তিনি। তবে গোলাপী বেগমের শ্বশুর বিচ্ছাদ আলী পাল্টা অভিযোগ করে বলেন, ছেলে বাকপ্রতিবন্ধী হওয়ায় তার বউ খেয়াল-খুশি মতো চলাফেরা করে। ঈদের আগে কাউকে না জানিয়ে হঠাৎ উধাও হয়ে যায় গোলাপী। সম্ভাব্য সবখানে খুঁজেছেন তারা। কিন্তু সন্ধান পাননি। উদ্ধার হওয়া ওই মরদেহ গোলাপীর বলে ধরে নিয়েছিলেন তারা।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বাঘা থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মহসিন আলী বলেন, মরদেহ উদ্ধারের সময় মুখে পোড়ামবিল মাখানো ছিল। তাছাড়া মরদেহ ওই গৃহবধূর বলে শনাক্ত করেছিলেন স্বজনরা। পরে আইনি প্রক্রিয়া শেষে মরদেহ তাদের কাছে হস্তান্তর করা হয়।

নিহত নারী জীবিত হয়ে ফিরে আসা প্রসঙ্গে ওসি বলেন, যাচাই-বাছাই শেষে ওই নারীকে ছেড়ে দেয়া হয়েছে। কাছে থাকা আলামত ও ছবি নিয়ে উদ্ধার হওয়ায় মরদেহের পরিচয় শনাক্তের চেষ্টা চালাচ্ছে পুলিশ।
শীর্ষকাগজ/এসএসআই