মঙ্গলবার, ১২-নভেম্বর ২০১৯, ০৫:৪০ পূর্বাহ্ন
  • জেলা সংবাদ
  • »
  • স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণচেষ্টা, মুয়াজ্জিনকে গণধোলাই

স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণচেষ্টা, মুয়াজ্জিনকে গণধোলাই

shershanews24.com

প্রকাশ : ১৮ জুন, ২০১৯ ০৫:২৯ অপরাহ্ন

শীর্ষকাগজ, টাঙ্গাইল : টাঙ্গাইলের সখীপুর উপজেলায় পঞ্চম শ্রেণির ছাত্রীকে ধর্ষণচেষ্টার অভিযোগে মসজিদের এক মুয়াজ্জিনকে গণধোলাই দিয়েছে এলাকাবাসী। জিন তাড়ানোর কথা বলে গত বৃহস্পতিবার একা একটি ঘরে নিয়ে ওই ছাত্রীকে ধর্ষণের চেষ্টা করেন মুয়াজ্জিন।

এ ঘটনায় গতকাল সোমবার দুপুরে শিশুটির মা বাদী হয়ে মুয়াজ্জিন রুহুল আমিনকে (২৫) আসামি করে সখীপুর থানায় মামলা করেন। ওই মুয়াজ্জিনের বাড়ি ময়মনসিংহের ফুলবাড়িয়া উপজেলায়।

মামলার অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, ঝাড়-ফুক দিয়ে ওই ছাত্রীর মাথাব্যাথা ছাড়াতে তাদের বাড়িতে আসেন মুয়াজ্জিন রুহুল আমিন। পরপর দুইদিন ওই ছাত্রীর বাড়িতে এসে সবার সামনেই মাথায় ঝাড়-ফুক দেন তিনি। তৃতীয় দিন গত বৃহস্পতিবার ওই মুয়াজ্জিন ছাত্রীর বাড়িতে এসে তার মাকে জানান, ছাত্রীকে জিনে ধরেছে। জিন তাড়াতে বাটিতে সরিষার তেল নিয়ে মুয়াজ্জিন ওই ছাত্রীকে একা একটি ঘরে নিয়ে যান।

তার অনুমতি ছাড়া ওই ঘরে কাউকে না প্রবেশ করতে বলে দেন মুয়াজ্জিন। এরপর ওই ছাত্রীর চোখে সরিষার তেল লাগিয়ে তাকে ধর্ষণের চেষ্টা করলে শিশুটি চিৎকার শুরু করে। এ সময় বাইরে থাকা লোকজন চিৎকার শুনে ঘরে ঢুকে মুয়াজ্জিনকে আটক করে গণধোলাই দেয়। পরে গ্রাম্য সালিশের সিদ্ধান্ত মতে ওই মুয়াজ্জিনকে এলাকা থেকে তাড়িয়ে দেওয়া হয়।

এ বিষয়ে মসজিদের ব্যবস্থাপনা কমিটির সাধারণ সম্পাদক আবদুল আলীম বলেন, ‘মোয়াজ্জিনকে চাকরি দেওয়ার সময় তার ঠিকানা ও জাতীয় পরিচয়পত্র জমা নেওয়া হয়নি। তার কথা মতে, ময়মনসিংহের ফুলবাড়িয়া উপজেলায় তার বাড়ি। এ ছাড়া আমাদের কাছে তার পূর্ণ কোনো ঠিকানা নেই।’

সখীপুর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) এএইচএম লুৎফুল কবির বলেন, ‘এ ঘটনায় মামলা হয়েছে। তদন্তপূর্বক আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’
শীর্ষকাগজ/এসএসআই