বুধবার, ২০-নভেম্বর ২০১৯, ০৪:৪৯ অপরাহ্ন
  • জেলা সংবাদ
  • »
  • ডাক্তারের সঙ্গে দেখা করতে চাওয়ায় বাবাকে মারধর, সন্তানের মৃত্যু

ডাক্তারের সঙ্গে দেখা করতে চাওয়ায় বাবাকে মারধর, সন্তানের মৃত্যু

shershanews24.com

প্রকাশ : ০৭ নভেম্বর, ২০১৯ ১০:২২ অপরাহ্ন

শীর্ষনিউজ, মাদারীপুর : মাদারীপুর সদর হাসপাতালের দাড়োয়ানদের গাফিলতির কারণে বৃহস্পতিবার দুপুরে এক নবজাতকের মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে নবজাতকের বাবা, দাদি ও ফুপুকে মারধর করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। নবজাতক শিশুটি মাদারীপুর শহরের পানিছত্র এলাকার মারুফ শেখের সন্তান।

পরিবার ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, গতকাল বুধবার (৬ নভেম্বর) দুপুরে মাদারীপুরের চৌধুরী ক্লিনিকে মারুফ শেখের স্ত্রীর সিজার করা হয়। পরে নবজাতকের অবস্থার অবনতি হলে মাদারীপুর সদর হাসপাতালে স্থানান্তরের কথা বললে ভুক্তভোগীর পরিবার শিশুটিকে সদর হাসপাতালে ভর্তি করেন। সেখানে অবস্থা আরও অবনতি হলে পরে একই ডাক্তার বৃহস্পতিবার সকালে ফরিদপুরে নিয়ে যেতে বলেন। শিশুটিকে ফরিদপুর নিয়ে যাওয়ার জন্য অ্যাম্বুলেন্স ভাড়া করা হয়। ওই সময় ডাক্তার হাসপাতালের ওয়ার্ডে রোগী দেখছিলেন।

এ সময় দাড়োয়ানরা ওয়ার্ডের দরজা বন্ধ করে রাখে। দরজা খুলতে দেরি হওয়ায় শিশুটির পরিবারের সদস্যরা বাইরে থেকে ধাক্কাধাক্কি শুরু করেন। এক পর্যায়ে দাড়োয়ানরা উত্তেজিত হয়ে শিশুটির পরিবারের উপর হামলা চালায়। এতে শিশুটির বাবা মারুফ শেখের (৩০) মাথা ফেটে যায়। শিশুটির দাদি রাহেলা বেগম (৫০) ও ফুপু মুক্তাও (২২) আহত হন। এর কিছুক্ষণ পর শিশুটির মৃত্যু হয়।

শিশুটির বাবা মারুফ শেখ বলেন, ফরিদপুরে রেফার্ডের কথা শুনে আমি ডাক্তারের সঙ্গে সরাসরি কথা বলতে ভেতরে প্রবেশ করতে চাইলে দরজার সামনে থাকা দাড়োয়ানরা আমাকে বাধা দেয়। কথাকাটির এক পর্যায়ে তারা আমার মাথায় আঘাত করে। এ সময় আমার মা ও বোনকে আঘাত করা হয়। দাড়োয়ানের গাফিলতির কারণে আমার সন্তানের মৃত্যু হয়েছে। আমি এর বিচার চাই।

মাদারীপুর সদর হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসক শশাঙ্ক চন্দ্র ঘোষ বলেন, হাসপাতালের স্টাফদের সঙ্গে হাতাহাতির ঘটনা ঘটেছে। তবে রোগীর স্বজনদের মাথা ফাটানো হয়নি। পড়ে গিয়ে তালার আঘাতে মাথা ফেটেছে।
শীর্ষনিউজ/এ