শুক্রবার, ২৯-মে ২০২০, ০৭:১০ অপরাহ্ন
  • জেলা সংবাদ
  • »
  • স্ত্রীকে মারধর করায় নারায়ণগঞ্জে যুবলীগ নেতা গ্রেপ্তার

স্ত্রীকে মারধর করায় নারায়ণগঞ্জে যুবলীগ নেতা গ্রেপ্তার

shershanews24.com

প্রকাশ : ২৯ মার্চ, ২০২০ ০৯:৫২ অপরাহ্ন

শীর্ষনিউজ, নারায়ণগঞ্জ : স্ত্রীকে মারধরের অভিযোগে নারায়ণগঞ্জ জেলা যুবলীগের সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক শাহ ফয়েজ উল্লাহ ফয়েজকে (৪৮) গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গত শনিবার রাতে স্ত্রী আরোহী হাওলাদার (২২)’র দায়ের করা মামলার প্রেক্ষিতে থানায় ডেকে নিয়ে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। 

তবে ফয়েজের ছোট বোন নারায়ণগঞ্জ জজ কোর্টের সিনিয়র আইনজীবী অ্যাডভোকেট উম্মে হাবিবা মুক্তার দাবি স্ত্রী আরোহীর পরকীয়া প্রেমের বিষয়টি হাতে নাতে ধরা পড়ে যাওয়ায় তার ভাইয়ের বিরুদ্ধে থানায় মিথ্যা যৌতুক মামলা করিয়ে তাকে গ্রেপ্তার করানো হয়েছে। আরোহীর পরকীয়ার তথ্য প্রমাণ তার ভাইয়ের হাতে রয়েছে বলেও তিনি দাবি করেন। রোববার বিকেলে ফয়েজকে আদালতে পাঠানো হলে আদালত তাকে জেল হাজতে পাঠিয়ে দেন।

ফতুল্লা মডেল থানার ওসি আসলাম হোসেন বলেন, মামলায় আরোহী হাওলাদার অভিযোগ করেন ২০১৯ সালের ২৫ ফেব্রুয়ারি ভালোবেসে শাহ ফয়েজ উল্লাহ ফয়েজকে বিয়ে করেন তিনি। এরপর তাদের ঘরে একটি সন্তান হয়। সেই সন্তানের বয়স ৩ মাস।

মামলায় আরোহী দাবি করেন, বিয়ের পর থেকেই ফয়েজ তার কাছে যৌতুক দাবি করলে তিনি ৮ লাখ টাকা যৌতুক প্রদান করেন। আরও যৌতুক দাবি করলে তা দিতে অপারগতা প্রকাশ করলে গত শুক্রবার রাতে ফয়েজ তাকে মারধর করেন। এরপর তিনি ৯৯৯-এ ফোন করলে পুলিশ এসে তাকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়। থানায় তিনি স্বামীর বিরুদ্ধে অভিযোগ দিলে পুলিশ শনিবার রাতে ফয়েজকে থানায় ডেকে পাঠান। ফয়েজ থানায় এলে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

এদিকে আরোহীর দাবিকে নাকচ করে দিয়ে ফয়েজের ছোট বোন আইনজীবী অ্যাডভোকেট উম্মে হাবিবা মুক্তা বলেন, আরোহীর বাবা খলিলুর রহমান মারা গেছেন অনেক আগেই। তাহলে যৌতুকের ৮ লাখ টাকা সে দিলো কিভাবে? তারা ৫ বোন, কোন ভাই নেই। প্রকৃত সত্য হলো আরোহীর চরিত্র ভাল না। তার ভাইকে প্যাঁচে ফেলে সে বিয়ে করেছে। তাদের বিয়ের বয়স ১৩ মাস। তাহলে ৩ মাসের সন্তান থাকে কিভাবে? বিয়ে হলেও আরোহীর চরিত্র ঠিক হয়নি। বিয়ের পরেও পরকীয়া প্রেমে চালিয়ে যাওয়ায় সেটি তার ভাইয়ের হাতে ধরা পড়ে যায়। একারণে তার ভাই তাকে ২/৪টি চড় মেরেছে, এর বেশি কিছু নয়।

আরোহীর পরকীয়া প্রেমের যাবতীয় তথ্য প্রমাণ তার ভাইয়ের কাছে রক্ষিত আছে বলে অ্যাডভোকেট মুক্তা দাবি করেন। আদালত খোলার পর সেগুলো আদালতে উপস্থাপন করা হবে বলেও জানান এই আইনজীবী।
শীর্ষনিউজ/এসএসআই