বুধবার, ১৭-অক্টোবর ২০১৮, ০৮:৪১ অপরাহ্ন
  • অর্থনীতি
  • »
  • অ্যাথলেটদের উদ্যোক্তা বানাবে ইউনূস সেন্টার 

অ্যাথলেটদের উদ্যোক্তা বানাবে ইউনূস সেন্টার 

Shershanews24.com

প্রকাশ : ১১ অক্টোবর, ২০১৮ ০৬:৫৬ অপরাহ্ন

শীর্ষ নিউজ, ঢাকা : অ্যাথলেট ও অলিম্পিয়ানদের  উদ্যোক্তা বানাবে ইউনূস সেন্টার। এ নিয়ে আন্তর্জাতিক অলিম্পিক কমিটির সাথে ইউনূস সেন্টারের একটি চুক্তি সই হয়েছে। বৃহস্পতিবার সংস্থাটির এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।
আর্জেন্টিনায় অনুষ্ঠিত যুব অলিম্পিক অনুষ্ঠানে আন্তর্জাতিক অলিম্পিক কমিটির পক্ষে অলিম্পিক প্রেসিডেন্ট টমাস বাখ ও ইউনূস সেন্টারের পক্ষে প্রফেসর মুহাম্মদ ইউনূসের মধ্যে আনুষ্ঠানিকভাবে এই চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়। চুক্তির লক্ষ্য অলিম্পিজমের মূল্যবোধের মাধ্যমে ও সামাজিক ব্যবসাকে হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করে একটি উন্নততর সমাজ গড়ে তোলা, বিশেষ করে অ্যাথলেট ও অলিম্পিয়ানদেরকে দ্বৈত ক্যারিয়ার গ্রহণ ও ক্যারিয়ার পরিবর্তনে সহায়তা করা, এবং প্যারিসে একটি ইউনূস স্পোর্টস হাব প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে তাদেরকে উদ্যোক্তায় পরিণত হতে সক্ষম করে তোলা।

অনুষ্ঠানে প্রফেসর ইউনূস বলেন, “আমরা মানুষেরা জন্মগতভাবেই উদ্যোক্তা; আমরা খেলোয়াড়দের মধ্যে থাকা এই উদ্যোক্তার শক্তিকে অবমুক্ত করে দিতে চাই। তাদের সামনে রয়েছে একটি রোমাঞ্চকর জীবন; তারা তাদের নিজেদের জন্য সফল উদ্যোক্তায় পরিণত হতে পারে, তারা অন্যদের বিভিন্ন সমস্যার সমাধান করতে সামাজিক ব্যবসাও সৃষ্টি করতে পারে। বিশ্বের সামনে নিজেদেরকে তুলে ধরতে এটা তাদের জন্য নতুন আরেকটি সুযোগ।

অলিম্পিক প্রেসিডেন্ট, যিনি নিজেও অসি চালনায় স্বর্ণ পদকধারী, বলেন, “অ্যাথলেটরা হচ্ছে অলিম্পিকের প্রাণ এবং আমরা নানাভাবে তাদেরকে সাহায্য করে থাকি। “অ্যাথলেট ৩৬৫ বিজনেস অ্যাকসিলারেটর” আন্তর্জাতিক অলিম্পিক কমিটির আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ উদ্যোগ যার লক্ষ্য অ্যাথলেটদেরকে খেলোয়াড়ি ক্যারিয়ারের পাশাপাশি একটি দ্বিতীয় ক্যারিয়ার গড়ে তুলতে সাহায্য করা। অলিম্পিক কমিটি অ্যাথলেটদের জন্য নতুন নতুন সুযোগ তৈরী করতে চায় এবং প্রফেসর ইউনূস ও ইউনূস সেন্টারের সাথে যৌথভাবে এই নতুন সুযোগটি তৈরী করে দিতে পারায় আমরা আনন্দিত। 
ক্যারিয়ার পরিবর্তন খেলোয়াড়দের জীবনে একটি গুরুত্বপূর্ণ সন্ধিক্ষণ কেননা কারো খেলোয়াড়ি জীবন চিরস্থায়ী হয় না এবং মাঠে প্রতিযোগিতার দিন সমাপ্ত হবার পর একজন খেলোয়াড়ের জীবন ব্যাপকভাবে পরিবর্তিত হতে পারে। কিন্তু পরিবর্তনের এই সময়টা নতুন ও রোমাঞ্চকর চ্যালেঞ্জও নিয়ে আসতে পারে। তবে খেলোয়াড়ি জীবনে অর্জিত বিভিন্ন আইডিয়া ও দক্ষতা যেমন নেতৃত্ব, অধ্যবসায়, নমনীয়তা ও টিম স্পিরিট একজন খেলোয়াড়ের জন্য একজন সফল উদ্ভাবক ও উদ্যোক্তায় পরিণত হয়ে নিজের ও সমাজের অন্যদের জীবনে অবদান রাখতে গুরুত্বপূর্ণ সম্পদ হিসেবে আবির্ভূত হতে পারে।
শীর্ষ নিউজ/আর