শনিবার, ১৫-আগস্ট ২০২০, ০৯:০০ পূর্বাহ্ন
  • আইসিটি
  • »
  • ফেসবুকে ১০ প্রতারক থেকে সাবধান

ফেসবুকে ১০ প্রতারক থেকে সাবধান

shershanews24.com

প্রকাশ : ১৯ নভেম্বর, ২০১৯ ১১:১৬ পূর্বাহ্ন

শীর্ষনিউজ ডেস্ক: ফেসবুকে নানা প্রলোভনের ফাঁদ পেতে রেখেছে সাইবার দুর্বৃত্তরা। সাইবার বিশেষজ্ঞরা বলছেন, বিধবা, বিপত্নীক ও একলা থাকা লোকজনকে লক্ষ্য করেই এসব ফাঁদ। রোমান্টিক সম্পর্ক তৈরিতে প্রলুব্ধ করা হচ্ছে। এদের ফাঁদে একবার পা দিলেই নানা কৌশলে অর্থ হাতিয়ে নেওয়াসহ ব্ল্যাকমেলের শিকার হওয়ার ঝুঁকি তৈরি হয়। প্রতারকেরা উপহার, অর্থসহ নানা বিষয়ের প্রলোভন দেখিয়ে যোগাযোগ করে। লোভনীয় বার্তা পাঠিয়ে বা ‘ফিশিং’ করে বিভিন্ন তথ্য হাতিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করে।

ফেসবুকে বিভিন্ন লোভনীয় লিংক বা স্ক্যাম ছড়িয়ে শিকার ধরার চেষ্টা করা হয়। ফেসবুকে সম্প্রতি ছড়িয়ে পড়া কয়েক ধরনের প্রতারণা সম্পর্কে সচেতন হওয়া জরুরি। ফেসবুক ব্যবহারকারীদের ঠকাতে অনেক দিন ধরেই নানা রূপে এসব স্ক্যাম রয়ে গেছে। এখন আরও নতুন নতুনরূপে তা সামনে আসছে।
নাইজেরিয়ার রাজপুত্র: ইন্টারনেটজুড়েই একটি স্ক্যাম সবচেয়ে জনপ্রিয়। তা হচ্ছে নাইজেরিয়ার রাজপুত্রের নামে প্রতারণা। স্ক্যামে বলা হয়, নাইজেরিয়ার রাজপুত্র বা তাঁর পরিবারের সদস্যরা এখন বেজায় বিপদে। তাই দেশ থেকে দ্রুত অর্থ স্থানান্তর করতে চাইছে। ফেসবুক ব্যবহারকারীকে ওই অর্থ গ্রহণ করার প্রলোভন দেখানো হয়। এর বিনিময়ে শুধু অর্থ আনার খরচ চাওয়া হয়। অনেকেই এ প্রলোভনে পড়ে যোগাযোগ করে ফেলেন। এখন অবশ্য এ ধরনের প্রতারকদের বিরুদ্ধে অনেকেই সচেতন হয়েছেন। এতে নাইজেরিয়ার বদলে অন্যান্য দেশের পরিচিত কোনো পরিবারের সদস্যদের নাম ভাঙিয়ে এ ধরনের প্রতারণা করা হতে পারে।
স্পেনের বন্দী: ফেসবুকে এমন লিংক পেয়ে যেতে পারেন, যাতে দাবি করা হয় স্পেনের কেউ একজন প্রচুর অর্থের মালিক বিপদে পড়েছেন। তাঁকে আটকে রাখা হয়েছে। তিনি জরুরি অর্থ পাঠাতে চান। এ জন্য সাহায্য করলে তিনি পুরো অর্থ ফেসবুক ব্যবহারকারীর কাছে পাঠিয়ে দেবেন। এরপর একটা ভাগ তিনি পাবেন। এ ছাড়াও নানা প্রলোভন দেখিয়ে অর্থ পাঠাতে উৎসাহী করে তোলে সাইবার দুর্বৃত্তরা। আগে মেইলে এ ধরনের প্রতারণা বেশি হতো। তবে এখন সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমেও এ প্রতারণা ছড়িয়েছে।
গাড়ি বিক্রি: অনলাইনে নানা ক্লাসিফায়েড বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে গাড়ি বিক্রির কথা জানাতে পারে সাইবার প্রতারকেরা। এ ছাড়া সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমেও নানাভাবে গাড়ি কেনার ক্ষেত্রে প্রলোভন দেখায়। এ ক্ষেত্রে অনেক পরিচিত সাইট ব্যবহার করতে পারে। গাড়ি কিনতে আগ্রহী ক্রেতাদের লক্ষ্য করে এ ধরনের বিজ্ঞাপন দেখানো হয়। এরপর অর্থ স্থানান্তরের জন্য ভুয়া মাধ্যম ব্যবহার করে প্রতারণা করতে পারে। অনলাইনে গাড়ি কেনা ও অনলাইনে আগাম অর্থ পাঠানোর আগে সতর্ক করেন গবেষকেরা।
ভুয়া চাকরি: ফেসবুকে অনেক বড় প্রতিষ্ঠানের চাকরির বিজ্ঞাপন দেখে রোমাঞ্চিত হবেন না। চাকরিতে আবেদন করার আগে এবং কোনো সাক্ষাৎকারে যাওয়ার আগে তা প্রতারণা কি না, এ বিষয়ে নিশ্চিত হয়ে নিন। অনলাইনে চ্যাটের মাধ্যমে সাক্ষাৎকার ও নিয়োগের কথা বললে প্রতিষ্ঠানের অস্তিত্ব সম্পর্কে জেনে নিন। অনলাইনে নিয়োগের ক্ষেত্রে লেনদেনে সতর্ক থাকুন।
বাড়ি ভাড়া: অনেকেই ফেসবুকে সুন্দর বাড়ির ছবি দেখে ভাড়া নিতে চান। কিন্তু বাড়ি ভাড়া নেওয়ার জন্য বাড়ির প্রকৃত অবস্থা জানা প্রয়োজন। ফেসবুকে অনেক সময় প্রতারকেরা ভিন্ন বাড়ির ছবি দিয়ে বাড়ি কিনতে উৎসাহী করে তোলে। এ ক্ষেত্রে আগাম অর্থ পরিশোধ করলে ধোঁকা খেতে হতে পারে।
ফেসবুক রোমান্স: অনেকেই অনলাইনে সঙ্গীর খোঁজ করেন। সুযোগটা কাজে লাগাতে ওত পেতে থাকে সাইবার দুর্বৃত্তরা। ডিজিটাল প্রতারণার ক্ষেত্রে সবচেয়ে বেশি অর্থ লোকসান হয়েছে অনলাইন রোমান্সের ফাঁদে পা দিয়েই। ২০১৮ সালে ১৪ কোটি ৩০ লাখ ডলার হাতিয়ে নিয়েছে দুর্বৃত্তরা। ফেসবুকে বিভিন্ন সুন্দরী মেয়ে বা সুন্দর ছেলের পোস্ট দিয়ে তার সঙ্গে যোগাযোগে আগ্রহী করে তোলে দুর্বৃত্তরা। অনেকে ক্ষেত্রে দাতব্য কাজ, সঙ্গীহীন পরিচয় দিয়ে অর্থ চাইতে পারে। এমন প্রলোভনে ভুলে গেলেই সর্বনাশ।
গিফট কার্ড: আপনি ফেসবুকে লটারি জিতেছেন বা কোনো উপহার জিতেছেন বলে টাইমলাইনে পোস্ট দেখাতে পারে। বিনা মূল্যে উপহারের নমুনা দেখিয়ে সে লিংকটিতে ব্যবহারকারীকে ক্লিক করতে আকৃষ্ট করে দুর্বৃত্তরা। বর্তমানে ফেসবুকের দ্রুত ছড়িয়ে পড়া স্ক্যামগুলোর একটি এই গিফট কার্ড স্ক্যাম। এ ধরনের লিংকে ক্লিক করলে ব্যক্তিগত তথ্য চাওয়া হয়। এসব তথ্য দেওয়া হলেও কোনো উপহার পাওয়া যায় না বরং কম্পিউটারে ম্যালওয়্যার ডাউনলোড হওয়ার ঝুঁকি থাকে।
তারকাদের ভিডিও: ফেসবুকে তারকাদের নিয়ে বা সমসাময়িক বিভিন্ন ঘটনা সংশ্লিষ্ট গুজব নিয়ে চটকদার খবরের পোস্ট পাওয়া যায়। অনেক সময় এ ধরনের খবরকে ‘ব্রেকিং নিউজ’, ‘গোপন খবর’, ‘গুমর ফাঁস’ ‘তথ্য ফাঁস’ ‘আড়ালের খবর’ ইত্যাদি নামে পরিবেশন করা হয়। ফেসবুকে চটকদার পোস্ট দিয়ে তাতে অধিকাংশ সময় লাইক চাওয়া হয়। ইসেটের বিশ্লেষকেদের পরামর্শ হচ্ছে, যে পোস্টগুলোতে লাইক চাওয়া হয় সে পোস্টগুলোতে ক্লিক করা থেকে বিরত থাকুন। খবরের যে উত্সগুলো আপনার পরিচিত নয় সে সাইটগুলোর খবরে ক্লিক করলে ম্যালওয়্যার আক্রমণের ঝুঁকি থাকে। আসল খবরের আদলে সাইবার দুর্বৃত্তরা ফেসবুকে ভুয়া নিউজের লিংক পোস্ট করে তাদের উদ্দেশ্য সফল করে।
রিয়ান্না সেক্স টেপ: ফেসবুকে বিভিন্ন তারকাকে নিয়ে স্ক্যাম রয়েছে। এ ধরনের স্ক্যাম ফেসবুকে ৭.৫৩ শতাংশ জনপ্রিয়। মাইলি সাইরাস, কিম কারদাশিয়ান কিংবা রিয়ান্নাকে নিয়ে ফেসবুকে অসংখ্য স্ক্যাম রয়েছে। নতুন ও পুরোনো অনেক স্ক্যাম লিংক আপনাকে বোকা বানাতে পারে। মনে রাখবেন, ফেসবুকে রিয়ান্নার সেক্স ভিডিও নিয়ে যত লিংক পাবেন সব ভুয়া। তাই এতে ক্লিক করবেন না।
গোপন বোন: ফেসবুকে ‘গোপন বোন’ পরিচয়ের একটি নেটওয়ার্ক দ্রুত ছড়াচ্ছে। আকর্ষণীয় উপহারের প্যাকেজের লোভ দেখিয়ে নারী ফেসবুক ব্যবহারকারীদের ঠকাতে ‘গোপন বোন’ পরিচয় ব্যবহার করা হচ্ছে। ফেসবুক ব্যবহারকারীদের ইনবক্সে কিংবা নিউজফিড আকারে আকর্ষক একটি উপহার বিনিময়ের বার্তাটি চলে আসতে পারে।‘সিক্রেট সিস্টারস গিফট এক্সচেঞ্জ’ নামের এই বার্তায় উপহার পাঠানোর জন্য ব্যবহারকারীকে প্রলুব্ধ করা হয়। বলা হয়, যদি গোপনে ১০ ডলার মূল্যের একটি উপহার কাউকে পাঠিয়ে তালিকায় নাম লেখানো যায়, তবে এই রকম ৬ থেকে ৩৬টি পর্যন্ত উপহার পাওয়া যাচ্ছে।
যেভাবে সাবধান হবেন: ফেসবুকে প্রতারকের কবলে পড়া থেকে রক্ষা পেতে ব্যবহারকারীকে সচেতন হতে হবে। ফেসবুক কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, সাইবার দুর্বৃত্তদের দৌরাত্ম্যে এ ধরনের স্ক্যাম পুরোপুরি সরিয়ে ফেলা সম্ভব হয় না। ব্যবহারকারীদের সচেতনতা ও প্রচেষ্টা থাকা দরকার। এ ধরনের সন্দেহজনক লিংকে ক্লিক করা বা ভিডিও দেখার ক্ষেত্রে সচেতন থাকতে হবে। গবেষকেরা বলছেন, ব্যবহারকারীরা এখন মোবাইল ফোনকে বেশি গুরুত্ব দেন বলে দুর্বৃত্তরা তাঁদের লক্ষ্য করছে বেশি। সামাজিক যোগাযোগের সাইটে আসা বিভিন্ন লিংক, বিশেষ করে মেসেঞ্জারের লিংক বা মোবাইল এসএমএসে এ ধরনের লিংক আসে বেশি।
 ফিশল্যাবের বিশেষজ্ঞরা বলছেন, মানুষ এখন এসএমএস ও সামাজিক যোগাযোগের সাইটগুলোয় পোস্টগুলোকে বিশ্বাসযোগ্য উৎস হিসেবে মনে করছে। 
সাইবার দুর্বৃত্তদের প্রতারণার হাত থেকে রক্ষা পেতে এ ধরনের লিংকে ক্লিক করার আগে বা নির্দেশনা মানার আগে একটু দেখে নেওয়া প্রয়োজন। মনে রাখতে হবে, ফেসবুক বা অন্য কোনো সেবা থেকে লগইন লিংক এসএমএস বা অন্য কোনো উৎসে পাঠানো হবে না। অপরিচিত কেউ কোনো লিংক পাঠালে তাতে ক্লিক করবেন না।
শীর্ষনিউজ/জে
 
 



..........