সোমবার, ১৮-নভেম্বর ২০১৯, ০৪:২১ অপরাহ্ন
  • আন্তর্জাতিক
  • »
  • ‘বুলবুল’, কলকাতাসহ ৭ জেলায় বৃষ্টি, সঙ্গে ঝোড়ো হাওয়া

‘বুলবুল’, কলকাতাসহ ৭ জেলায় বৃষ্টি, সঙ্গে ঝোড়ো হাওয়া

shershanews24.com

প্রকাশ : ০৯ নভেম্বর, ২০১৯ ১০:৫০ পূর্বাহ্ন

শীর্ষনিউজ ডেস্ক: আরও শক্তি বাড়িয়ে ভয়ঙ্কর রূপ নিয়েছে ঘূর্ণিঝড় বুলবুল। এ রাজ্যের সাগর দ্বীপ থেকে মাত্র ১৯০ কিলোমিটার দূরে রয়েছে অতি ভয়ঙ্কর এই ঘূর্ণিঝড়টি। কলকাতা থেকে এর দূরত্ব ৩০০ কিলোমিটার। গতি বাড়িয়ে বুলবুল দ্রুত এগিয়ে আসছে পশ্চিমবঙ্গ ও বাংলাদেশের দিকে। ফলে সকাল থেকে উপকূলবর্তী জেলাগুলোতে শুরু হয়েছে তুমুল বৃষ্টি, সঙ্গে বইছে ঝোড়ো হাওয়া। কলকাতাতেও চলছে বৃষ্টি। সঙ্গে ঝোড়ো হাওয়া।
আলিপুর আবহাওয়া দফতর সূত্রে খবর, শনিবার রাত ৮টা থেকে ১২টার মধ্যে এ রাজ্যের সাগর দ্বীপ ও বাংলাদেশের খেপুপাড়ার মধ্যবর্তী এলাকায় আছড়ে পড়বে বুলবুল। এই মুহূর্তে ঘূর্ণিঝড়টি বাংলাদেশের খেপুপাড়া থেকে ৩৪০ কিলোমিটার দূরে রয়েছে। ওড়িশার পারাদ্বীপ থেকে ১১০ কিলোমিটার দূরে অবস্থান করছে এটি। আবহাওয়া বিজ্ঞানীদের অনুমান, বুলবুল আছড়ে পড়ার সময় এর গতিবেগ থাকবে ১২০ কিলোমিটারের আশপাশে। কোথাও কোথাও এর গতিবেগ হতে পারে ১৩৫ কিলোমিটারের কাছাকাছি। এই ভয়ঙ্কর ঘূর্ণিঝড়ের মোকাবিলায় প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ করছে প্রশাসনও।
১০ বছর আগে আয়লার বিপর্যয়ের কথা মাথায় রেখে এ রাজ্যের উপকূলবর্তী জেলা থেকে দক্ষিণ ২৪ পরগনা, সুন্দরবন, বকখালি, ঝড়খালি, সাগর— এ সব এলাকা থেকে বহু মানুষজনকে সরিয়ে আনা হয়েছে। ইতিমধ্যেই ওই সব জায়গায় ৬০ থেকে ৭০ কিলোমিটার বেগে হাওয়া বইছে। সঙ্গে চলছে প্রবল বৃষ্টি। অন্য দিকে, দিঘা, মন্দারমণি, শঙ্করপর, তাজপর, বকখালি, এই সব সমুদ্রসৈকতে প্রবল জলোচ্ছ্বাসের আশঙ্কা রয়েছে। ইতিমধ্যেই পূর্ব মেদিনীপুরের বিভিন্ন জায়গা থেকে বহু মানুষকে সুরক্ষিত স্থানে সরিয়ে আনা হয়েছে। জেলার পাশাপাশি কলকাতাতেও শুরু হয়েছে ভারী বৃষ্টি। আবহাওয়া দফতর সূত্রে খবর, কলকাতা-সহ দুই ২৪ পরগনা, পূর্ব মেদিনীপুর, হাওড়া, হুগলি ও নদিয়ায় আগামী ৪৮ ঘণ্টা বৃষ্টি চলবে।
দুই ২৪ পরগনা, পূর্ব মেদিনীপুর, কলকাতা, হাওড়া, হুগলি এবং নদিয়া— বুলবুলের জেরে এই সাতটি জেলার সমস্ত স্কুল-কলেজে ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে। নদীপথে ফেরি চলাচল বন্ধ করা হয়েছে। রাজ্যে উপকূলে বিভিন্ন জায়গায় জাতীয় বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনী মোতায়েন রয়েছে। কোনও অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটলে দ্রুত যাতে ব্যবস্থা নেওয়া যায়, তা নিয়ে সতর্ক থাকছে প্রশাসন।
শীর্ষনিউজ/জে