বৃহস্পতিবার, ১৭-অক্টোবর ২০১৯, ০৩:৩৭ অপরাহ্ন
  • খেলা
  • »
  • ট্যুরে স্ত্রী-বান্ধবী ছেলেদের শক্তি জোগায়: সানিয়া মির্জা

ট্যুরে স্ত্রী-বান্ধবী ছেলেদের শক্তি জোগায়: সানিয়া মির্জা

shershanews24.com

প্রকাশ : ০৪ অক্টোবর, ২০১৯ ১১:৫০ পূর্বাহ্ন

শীর্ষনিউজ ডেস্ক: ক্রিকেটারদের সঙ্গে তাদের স্ত্রী ও বান্ধবীদের কোনো সফরে না যেতে দেওয়ার নিয়মের কঠোর সমালোচনা করলেন সানিয়া মির্জা। তার মতে, এটা বোর্ডগুলোর খুব বাজে মানসিকতা। ভারতীয় টেনিস সেনসেশনের দাবি, ট্যুরে স্ত্রী বা বান্ধবী সঙ্গে থাকলে খেলোয়াড়রা শক্তি পায়।

‘ইন্ডিয়া ইকোনমিক সামিট’-এ বক্তব্য রাখার সময় সানিয়া এসব কথা বলেন। দক্ষিণ এশিয়ায় জাতিসংঘের এই শুভেচ্ছাদূত বলেন, “এই ধরনের মানসিকতা আরও গভীর এক ব্যাধি থেকে উঠে আসে। যেখানে মেয়েদের ধরা হয় চিত্ত বিক্ষেপের কারণ হিসেবে, তাকে শক্তি হিসেবে ভাবা হয় না।”

“অনেক দিন ধরেই দেখছি, আমাদের দেশের ক্রিকেট দলসহ বিশ্বের অনেক দলে কোনো ট্যুরে স্ত্রী ও বান্ধবীদের যেতে দেওয়া হয় না। কারণ, হিসেবে বলা হয়, এতে ক্রিকেটারদের মনোযোগ বিঘ্নিত হতে পারে।” সানিয়ার প্রশ্ন- “এর অর্থ কী? মেয়েরা এমন কী করে, যাতে ছেলেদের মনোযোগ সরে যায়।”

খেলোয়াড়দের সঙ্গে স্ত্রী বা পরিবার সঙ্গে থাকলে তাদের পারফরম্যান্স আরও ভালো হয় বলে মনে করেন সানিয়া, “টিম স্পোর্টসের ক্ষেত্রে পরিবার বা স্ত্রী সঙ্গে থাকলে ছেলেদের পারফরম্যান্স ভালো হয়, এটা প্রমাণিত।”

“স্ত্রী বা পরিবার সঙ্গে থাকলে ওদের শূন্য ঘরে ফিরতে হয় না। একসঙ্গে একটু ঘুরে আসতে পারে বা ডিনারে যেতে পারে। স্ত্রী বা বান্ধবী সঙ্গে থাকলে, তা মানসিকভাবে ছেলেদের সাহায্য করে। তারা ভালোবাসা পেতে পারে।”

এ বারের বিশ্বকাপে শোয়েব মালিকের সঙ্গে সানিয়ার একটি ছবি ভাইরাল হয়। পাকিস্তান টিমের নির্দেশ ছিল, স্ত্রীরা ক্রিকেটারদের সঙ্গে থাকতে পারবেন না। ভারতের ক্ষেত্রেও এমন নির্দেশ ছিল। ভারত-পাকিস্তান ম্যাচ পর্যন্ত ছিল এই নিষেধাজ্ঞা। এ ব্যাপারে প্রশ্ন করা হলে সানিয়া বলেন, “আমি ওখানে ছিলাম না। আমার অত ক্ষমতা নেই।”

“বিরাট শূন্য করলে আনুশকা শর্মাকে দোষ দেওয়া হয়। যেকোনো কিছুর সঙ্গে যেকোনো বিষয় জুড়ে দেওয়া হয়। এসবের কোনো মানে নেই। আমরা যদি এসবের প্রতিবাদ করি, যদি জোর গলায় কলি, যে আমরা শক্তি যোগাই, ওদের মন চঞ্চল হওয়ার কারণ আমরা নই, তাহলে হয়তো একদিন এই বিষয়গুলোর বিরুদ্ধে মেয়েরা জিতে যাবে।”

শীর্ষনিউজ/ওজি