শনিবার, ১৭-নভেম্বর ২০১৮, ১২:৩৮ পূর্বাহ্ন
  • জাতীয়
  • »
  • ভোটে জোটের তথ্য দিতে ৩৯ দলকে ইসির চিঠি

ভোটে জোটের তথ্য দিতে ৩৯ দলকে ইসির চিঠি

Shershanews24.com

প্রকাশ : ০৯ নভেম্বর, ২০১৮ ১১:৫০ অপরাহ্ন

শীর্ষনিউজ, ঢাকা : একাদশ সংসদ নির্বাচনে জোটের ছোট শরিককে বড় দলের প্রতীক ব্যবহারের সুযোগ দিতে চাইলে রোববারের মধ্যে তা নির্বাচন কমিশনকে জানাতে হবে। তফসিল ঘোষণার পর নিবন্ধিত ৩৯ দলের সভাপতি/সাধারণ সম্পাদক বরাবর এ সংক্রান্ত চিঠি দেওয়া হয়েছে বলে ইসির যুগ্মসচিব ফরহাদ আহাম্মদ খান জানিয়েছেন।

শুক্রবার ইসির জনসংযোগ পরিচালক এস এম আসাদুজ্জামান এক বিজ্ঞপ্তিতে জানান, একাধিক নিবন্ধিত দল মিলে নির্বাচনী জোট গঠন করা হলে, সেই জোটের যে কোনো একটি দলের প্রতীক জোটভুক্ত দলগুলোর প্রার্থীদের বরাদ্দ করা যাবে। তবে সেজন্য তিন দিনের মধ্যে তা কমিশনে জানাতে হবে।

বৃহস্পতিবার একাদশ সংসদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার কে এম নূরুল হুদা।

ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী, মনোনয়নপত্র দাখিল করা যাবে ১৯ নভেম্বর পর্যন্ত। ২২ নভেম্বর বাছাইয়ের পর ২৯ নভেম্বর পর্যন্ত প্রত্যাহারের সুযোগ থাকবে। এরপর ৩০ নভেম্বর প্রতীক বরাদ্দ হলে শুরু হবে আনুষ্ঠানিক ভোটের প্রচার। ভোট হবে ২৩ ডিসেম্বর।

রাজনৈতিক দলের নিবন্ধন চালু হওয়ার হওয়ার পর ২০০৮ সালে নবম সংসদ নির্বাচনে জাসদ ও ওয়ার্কার্স পার্টি জোটের বড় দল আওয়ামী লীগের নৌকা প্রতীকেই ভোটে অংশ নেয়।

এরপর ২০১৪ সালে দশম সংসদ নির্বাচনে জাসদ ও ওয়ার্কার্স পার্টির সঙ্গে বাংলাদেশ তরিকত ফেডারেশনও নৌকা প্রতীক ব্যবহার করে।

জাতীয় পার্টি এই জোটে থাকলেও ভোট করে নিজেদের লাঙ্গল প্রতীকে। অধিকাংশ রাজনৈতিক দলের বর্জনে দশম সংসদে জাতীয় পার্টি প্রধান বিরোধী দলের জায়গা পায়।

নবম  সংসদে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের সঙ্গে জোট করে বাংলাদেশ খেলাফত আন্দোলন একটি আসনে হাতপাখা প্রতীকে ভোট করে। বিকল্পধারা সঙ্গে জোট করে পিডিপি কুলা প্রতীক ব্যবহার করে কিছু আসনে। এই দলগুলোও দশম সংসদ নির্বাচন বর্জন করে।

অন্যদিকে  নবম সংসদ নির্বাচেনে বিএনপি নেতৃত্বাধীন জোটের নিবন্ধিত দল বিজেপি, ইসলামী ঐক্যজোট, জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশ ও জাতীয় গণতান্ত্রিক পার্টি প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে বিএনপির ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে। আরেক জোটসঙ্গী জামায়াতে ইসলামী ভোট করে নিজেদের প্রতীক দাঁড়িপাল্লায়।

শীর্ষনিউজ/এসএসআই