বৃহস্পতিবার, ১৮-জুলাই ২০১৯, ০১:১৭ অপরাহ্ন
  • অফিস-আদালত
  • »
  • ভিকারুননিসার ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ পদে হাসিনা বেগমই বহাল

ভিকারুননিসার ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ পদে হাসিনা বেগমই বহাল

shershanews24.com

প্রকাশ : ১০ জানুয়ারী, ২০১৯ ০৮:১৭ অপরাহ্ন

শীর্ষকাগজ, ঢাকা : রাজধানীর ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ পদে হাসিনা বেগমকেই বহাল করা হয়েছে। 
বৃহস্পতিবার বৈঠক করে তাকে ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষের দায়িত্ব ফিরিয়ে দিয়েছে ভিকারুননিসার গভর্নিং বডি। একইসঙ্গে শিক্ষার স্বার্থে স্থায়ী অধ্যক্ষ নিয়োগে সহায়তা চেয়ে শিক্ষা মন্ত্রণালয়, অধিদফতর ও বোর্ডকে চিঠি দেওয়ার সিদ্ধান্তও নেওয়া হয়েছে।
প্রতিষ্ঠানটির সভাপতি গোলাম আশরাফ তালুকদার বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় এই তথ্য নিশ্চিত করেন।
প্রতিষ্ঠানটির সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, স্থায়ীভাবে অধ্যক্ষ নিয়োগের জন্য গত ৯ ডিসেম্বর জাতীয় পত্রিকায় বিজ্ঞপ্তি দেয় ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজ কর্তৃপক্ষ। গত ১ জানুয়ারি আবেদন কার্যক্রম শেষ হয়। নিয়োগপ্রত্যাশী ১৬ প্রার্থীর আবেদন জমা পড়েছিল। তারমধ্যে এই প্রতিষ্ঠানে কর্মরত ছয়জন ও বাইরে থেকে ১০ জন প্রার্থী আবেদন করেন।
এই বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের পর গত ২ জানুয়ারি লিখিতভাবে নিয়োগের বিরোধিতা করেন অভিভাবক আব্দুস সামাদ সুজন।
মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, গত ২৮ আগস্ট বেসরকারি উচ্চমাধ্যমিক বিদ্যালয় ও উচ্চ মাধ্যমিক কলেজের অধ্যক্ষ পদে এবং ডিগ্রি কলেজের উপাধ্যক্ষ পদে নিয়োগের সব কার্যক্রম আপাতত স্থগিত করে আদেশ জারি করা হয়। এই আদেশ জারির পরও নিয়োগের চেষ্টা চালানোর অভিযোগে অভিভাবক আব্দুস সামাদ সুজন মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদফতরে অভিযোগ করেন। এই অভিযোগের পর শিক্ষা মন্ত্রণালয় গত ৬ জানুয়ারি ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজে অধ্যক্ষ নিয়োগ অবৈধ ঘোষণা করে আদেশ জারি করে। মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদফতরের (মাউশি) মহাপরিচালককে ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দেয়। এরপর ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজ কর্তৃপক্ষকে ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষকে স্থায়ী অধ্যক্ষ নিয়োগ বন্ধের নির্দেশ দেয়। এই নির্দেদের পর বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় বৈঠকে করে পদ থেকে সরিয়ে দেওয়া হাসিনা বেগমকে ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ পদে বহাল করে ভিকারুননিসা কর্তৃপক্ষ। 
বৃহস্পতিবার (১০ জানুয়ারি) বৈঠকের পর প্রতিষ্ঠানের সভাপতি গোলাম আশরাফ তালুকদার বলেন, ‘স্থায়ী অধ্যক্ষ না থাকায় শিক্ষা কার্যক্রম ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে। শুধু ভিকারুননিসাই নয়, সারাদেশের প্রতিষ্ঠানেই এ সংকট হচ্ছে। তাই সবার চাওয়া যেন একজন স্থায়ী অধ্যক্ষ নিয়োগ দেওয়া হয়। আমরা চেয়েছিলাম সরকারি আইন মেনে একজন অধ্যক্ষ নিয়োগ দিতে। সে অনুযায়ী কার্যক্রমও চলেছে। যেহেতু ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ হাসিনা বেগমও অধ্যক্ষ পদের জন্য একজন প্রার্থী ছিলেন, তাই নিয়োগের স্বচ্ছতার জন্য আমরা তাকে অব্যাহতি দিয়ে আরেকজনকে দায়িত্ব দিয়েছিলাম গভর্নিংবডির সভা করে। কেবল তাই নয়, আমরা ওই সভাতেই সিদ্ধান্ত নিয়েছিলাম, যদি শিক্ষা মন্ত্রণালয় স্থায়ী অধ্যক্ষ নিয়োগ অনুমোদন না করে তাহলে হাসিনা বেগমকেই স্বপদে ফিরিয়ে আনা হবে। সভায় আমরা আগের সিদ্ধান্তই বাস্তবায়ন করেছি।’
শিক্ষক ও অভিভাবকরা জানান, প্রতিষ্ঠান কর্তৃপক্ষের বৃহস্পতিবারের ইতিবাচক সিদ্ধান্তের পর এখন দেশের নামি এ প্রতিষ্ঠানটিতে চলা জটিলতার অবসান হবে বলে তারা আশা করছেন।
শীর্ষকাগজ/এমই