বুধবার, ২২-সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৫:২২ অপরাহ্ন

আফগানদের স্থিতিশীলতা নষ্ট না করতে

shershanews24.com

প্রকাশ : ১৪ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ০৩:১৮ অপরাহ্ন

শীর্ষনিউজ ডেস্ক: আফগানিস্তানে অর্থনৈতিক মন্দা রোধে সারা বিশ্বকে এক হতে হবে। কয়েক দশকের দুর্ভোগের পর আফগানিস্তান একটি ঐতিহাসিক বাঁকে আছে, যেখান থেকে এটি শেষ পর্যন্ত সংঘাত এবং অস্থিতিশীলতার চক্রের অবসান ঘটাতে পারে অথবা রাষ্ট্রীয় ব্যর্থতায় পতিত হতে পারে যা তার জনগণের জন্য অকথ্য দুর্দশা বয়ে আনবে এবং এই অঞ্চলকে প্রভাবিত করবে। আফগান জটিলতায় আফগানিস্তানের পর সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে পাকিস্তান।

খালিজ টাইমস এ লেখা এক কলামে পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মেহমুদ কোরেশি 'ক্ষুদ্র সামর্থ্য নিয়ে' আফগানিস্তানকে বিভিন্নভাবে পাকিস্তানের সাহায্য করার বর্ণনা দিয়ে আরো লিখেছেন, আমাদের তাদের রেখে দূরে চলে যাওয়ার কোন বিকল্প বা ইচ্ছা ছিল না। নিকটতম প্রতিবেশী হিসেবে আমাদের বিচ্ছিন্ন হবার মতো বিলাসিতাও নেই।

পাকিস্তানের যা করার আছে তা করতে পাকিস্তান প্রতিশ্রুতিবদ্ধ উল্লেখ করে তিনি লিখেছেন, কিন্তু পরিস্থিতি পরিবর্তিত হওয়ার সাথে সাথে বাস্তবসম্মত দৃষ্টিভঙ্গি থাকা অপরিহার্য। আফগান সংকট, এর ক্রমবর্ধমান খারাপ অবস্থা এবং ধারাবাহিকতা পাকিস্তানের তৈরি নয় কিন্তু আমরা "চিরকালব্যাপী যুদ্ধ" এর সমাপ্তি আলোচনার মাধ্যমে টানতে সাহায্য করার চেষ্টা করেছি।

পাকিস্তান আফগানদের স্থিতিশীলতার প্রক্রিয়াকে নষ্ট করা থেকে বিরত থাকার জন্য "লুণ্ঠনকারীদের" প্রতি আহ্বান জানিয়েছে। আফগানিস্তান গভীরভাবে আঘাতপ্রাপ্ত, তার নিরাময় প্রয়োজন, নিষ্ঠুর কারসাজি নয়। সাইবার প্ল্যাটফর্মের অপব্যবহার এবং মানুষের মধ্যে বিভেদ সৃষ্টির জন্য ভিত্তিহীন অভিযোগ ছড়িয়ে বিশ্বকে বিভ্রান্ত করা বন্ধ করুন।

আফগানিস্তানে নতুন ব্যবস্থার জন্য, আমাদের বক্তব্যঃ প্রকৃত পুনর্মিলন ঘটানোর চেষ্টা করুন এবং এমন রাজনীতি তৈরি করুন যেখানে জাতিগত বা লিঙ্গের কারণে কেউ নিজেকে অপূর্ণ বোধ করবে না।

আসুন আমরা ভূ-রাজনীতির উর্ধ্বে উঠে আফগানিস্তানের যন্ত্রণা ও দুর্ভোগ লাঘবের চেষ্টা করি। পাকিস্তান দায়িত্বশীল সকলকে অতীতের ভুলগুলো থেকে শিক্ষা নেওয়ার এবং সেগুলোর পুনরাবৃত্তি না ঘটানোর আহ্বান জানাচ্ছে।

শীর্ষনিউজ/এইচ