শনিবার, ২৪-জুলাই ২০২১, ১০:১০ পূর্বাহ্ন
  • অফিস-আদালত
  • »
  • দ্বিতীয় স্ত্রীর মামলায় রাষ্ট্রচিন্তা দলের দিদার কারাগারে

দ্বিতীয় স্ত্রীর মামলায় রাষ্ট্রচিন্তা দলের দিদার কারাগারে

shershanews24.com

প্রকাশ : ১৮ জুলাই, ২০২১ ০৮:৪৩ অপরাহ্ন

শীর্ষনিউজ, বগুড়া: দ্বিতীয় স্ত্রীর দায়ের করা মামলায় সামাজিক ও রাজনৈতিক সংগঠন রাষ্ট্রচিন্তা দলের অন্যতম সদস্য দিদারুল ইসলাম ভূঁইয়াকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। তার বিরুদ্ধে পূর্বের বিয়ের তথ্য গোপন করাসহ মানসিক, শারীরীক নির্যাতন করার অভিযোগে বগুড়া সদর থানায় মামলা দায়ের করেন তার দ্বিতীয় স্ত্রী। 

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা পুলিশের এসআই রায়হান জানান, গত শনিবার রাতে ঢাকার বাড্ডা দিদারের বাসা থেকে গ্রেপ্তার করে বগুড়ায় আনা হয়েছে। পরে রোববার তাকে আদালতে হাজির করা হয়। আদালত তাকে জামিন না দিয়ে জেল হাজতে প্রেরণ করেছেন।

মামালার বাদী দিদারের দ্বিতীয় স্ত্রী গণমাধ্যমকে জানান, দিদার তার সাথে প্রতারণা করেছেন। তিনি তার পূর্বের বিয়ে এবং সন্তানের তথ্য তার কাছে গোপন করেছেন। মিথ্যা কথা বলে দিদার ২০১৯ সালের ৯ই ডিসেম্বর আমাকে বিয়ে করেন।

বিয়ের কিছুদিন পর থেকে দিদার তাকে নানা ভাবে নির্যাতন চালায়। তার প্রথম স্ত্রী বিষয়টি জানার পর থেকে আমাকে জীবন নাশের হুমকি দিয়ে আসছেন। এক পর্যায়ে দিদার আমাকে ডিভোর্স দেয়ার জন্য চাপ দেয়। তিনি (দ্বিতীয় স্ত্রী) ডিভোর্স দিতে রাজি না হওয়ায় তার উপর শারীরীক নির্যাতন করে দিদার। বাধ্য হয়ে তিনি চলতি বছরের মে মাসের ২৫ তারিখে বগুড়া সদর থানায় মামলা দায়ের করেন।

দিদারের দ্বিতীয় স্ত্রী আরো বলেন, মামলার পর থেকে দিদার তার দলীয় প্রভাব খাটিয়ে নানামুখি হুমকি দিয়ে আসছিলেন। মামলা তুলে নেওয়ার জন্যও তিনি চাপ দিয়ে আসছিলেন। দিদার প্রতারণা করে আমার জীবনটা ধ্বংসের দ্বারপ্রান্তে নিয়েছেন। তিনি তার উপযুক্ত শাস্তি চান।

দিদারকে গ্রেপ্তারের বিষয়টি নিশ্চিৎ করে বগুড়া সদর থানার অফিসার ইনচার্জ সেলিম রেজা গণমাধ্যমকে জানান, দিদারকে ঢাকা থেকে গ্রেপ্তার করে শরিবার দিবাগত রাতে বগুড়ায় আনা হয়েছে। পরে আদালত তাকে জেল হাজতে প্রেরণ করেছেন। 
 
উল্লেখ্য দিদারুল ইসলাম ভূঁইয়া আলোচিত সামাজিক, রাজনৈতিক সংগঠন রাষ্ট্রচিন্তা দলের অন্যতম সদস্য। তার পিতা শফিকুল ইসলাম ভূঁইয়া। ঢাকার উত্তরবাড্ডার চ-৫৫/১ নম্বর বাসা তার স্থায়ী ঠিকানা। দিদার এর আগে গত বছরের ৫ মে র‌্যাবের হাতে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে দায়ের করা মালায় আটক হয়েছিলেন। বর্তমানে তিনি ওই মামলায় জামিনে আছেন।
শীর্ষনিউজ/এসএসআই